আসাম: অভয়ারণ্য দখল করে গড়ে উঠেছিল বিদ্যালয়-বস্তি-মসজিদ-মাদ্রাসা, বুলডোজার চালিয়ে দিলো প্রশাসন

আসামে অব্যাহত উচ্ছেদ অভিযান। এবার শোনিৎপুর জেলার বুড়াচাপরি অভয়ারণ্য থেকে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে বড়সড় পদক্ষেপ নিলো প্রশাসন। প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমি থেমে দখলদারদের উচ্ছেদ করতে দুই দিন ব্যাপী চলছে অভিযান।

উচ্ছেদ উপলক্ষে আগেই নোটিশ দেওয়া হয়েছিল প্রশাসনের তরফে। সেই নোটিশ পেয়ে অনেক পরিবার নিজেদের ঝুপড়ি ঘর নিজেরা ভেঙে জিনিসপত্র নিয়ে অন্যত্র চলে গিয়েছেন। তবে পাকা ঘরের বহু বাসিন্দা অনেকেই থেকে গিয়েছেন।

খবর অনুযায়ী, গতকালের পর আজও পুলিশ প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্তাদের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি জেসিবি নিয়ে পৌঁছে গিয়েছিলেন অভয়ারণ্য এলাকায়। একের পর এক বাড়ি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। বাদ যায়নি একাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয়, মসজিদ, মাদ্রাসা এবং অঙ্গণওয়াড়ি কেন্দ্রও।

প্রশাসনের কর্তারা জানাচ্ছেন যে প্রায় ২০০০ হেক্টর সংরক্ষিত বনভূমির জমি পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে উচ্ছেদ অভিযান চলছে। কোনরকম অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে, সেজন্য বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, বুড়াচাপরি অভয়ারণ্য বন্য প্রানীদের নিরাপদ আবাসস্থল হিসেবে পরিচিত ছিল। অভয়ারণ্য জুড়ে একসময় গন্ডার, হরিণ থেকে শুরু করে নানারকম বন্যপ্রাণীদের বাসস্থান ছিল। কিন্তু প্রায় ৪০ বছর পূর্বে অভয়ারণ্যে শুরু হয় অবৈধ দখলদারদের দাপট। বহু বন্যপ্রাণী হত্যা করা হয়। জঙ্গল কেটে পরিষ্কার করে গড়ে ওঠে বস্তি, পুকুর, বিদ্যালয়, মসজিদ ও মাদ্রাসা। গড়ে উঠেছিল সুপারির বাগান। ফলে অভয়ারণ্য থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যায় পশু পাখি। এবার সেই অভয়ারণ্য থেকে দখলদার মুক্ত করতে চলছে অভিযান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Sorry! Content is protected !!