ইরাক: পছন্দ হয়নি ‛গান’, বিয়ের কিছুক্ষণ পরই বিবিকে তালাক দিলেন যুবক

0
77

ফোন করে কিংবা মেসেজ করে ‛তালাক’ দেওয়ার ঘটনা এখন অতীত। ইরাকের এক যুবক এবার বিয়ের আসরেই তালাক দিলেন বিবিকে। তালাক দেওয়ার কারণটাও অদ্ভুত। বিয়ের আসরে চলা গান পছন্দ হয়নি ওই যুবকের।

জানা গিয়েছে, ওই ঘটনা ইরাকের রাজধানী বাগদাদের। ওইদিন সদ্য বিয়ে শেষ হয়েছিল। বিয়ের পরেই বসেছিল নাচগানের আসর। সেই সময় সাউন্ড সিস্টেমে সিরিয়ার এক গায়কের গান বাজছিল। সেই গানের তালে তালে অতিথি মেয়েরা নাচছিলেন। তাঁরাই সদ্য বিবাহিত মেয়েটিকে টানতে টানতে নিয়ে যান নাচার জন্য। আর তাতেই ক্ষেপে যান ওই যুবক।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সিরিয়ার গায়ক লামিস কানের গাওয়া ‘মেসায়তারা’ শিরোনামের গানটিই বিয়ের আসরে  ওই দম্পতির বিচ্ছেদের কারণ বলে স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।  সিরিয়ান ওই গানটির বাংলা অর্থ করলে দাঁড়ায় ‘আমি তোমাকে নিয়ন্ত্রণ করব’। 

একাধিক সংবাদ মাধ্যমে সিরিয়ান গানটির ইংরেজি অর্থ প্রকাশ করা হয়েছে। ওই গানটির বাংলা অনুবাদ করলে এমনই:-

আমি তোমাকে নিয়ন্ত্রণ করব; আমার কঠোর নির্দেশে তোমাকে শাসন করা হবে;
‘যদি তুমি রাস্তায় অন্য মেয়েদের দিকে তাকাও আমি তোমাকে পাগল করে দেব;
‘হ্যাঁ, আমি তোমাকে নিয়ন্ত্রণ করব;
‘তুমি আমার সোনা;
‘যতদিন তুমি আমার সঙ্গে থাকবে, ততক্ষণ তুমি আমার নির্দেশে চলবে;
‘আমি অহংকারী, আমি অহংকারী।’

উল্লেখ্য, এই গানটির কারণে স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার ঘটনা এই প্রথম নয়। এর আগেও এই গানের কারণে সিরিয়া, ইরাক সমেত একাধিক দেশে স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গত বছরই বিয়ের দিনে এই গানটি চালানোর জন্য স্ত্রীকে তালাক দিয়েছিলেন জর্ডনেরএক যুবক।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.