চীন: বাড়িতে কোরআন রাখায় উইঘুর মুসলিম মহিলার ১৪ বছরের জেল

0
26

বাড়িতে কোরআন রাখায় এক উইঘুর মুসলিম মহিলার ১৪ বছরের জেলের সাজা শোনালো আদালত। এর পাশাপাশি ওই মহিলার বিরুদ্ধে শিশুদের ইসলাম সম্বন্ধে শিক্ষা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

জানা গিয়েছে, ওই মহিলার নাম হাসিয়েত আহমেত(৫৭)। সে জিনজিয়াং প্রদেশের চাংজি হুই এলাকার বাসিন্দা। গত ২০১৭ সালে তাঁর বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযান চলার সময় তাঁর বাড়ি থেকে ২টি কোরআন পাওয়া যায়। ওই মহিলার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল যে তিনি এলাকার শিশু ও যুবকদের ইসলামিক শিক্ষা দিচ্ছেন। তারপরই তাকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। পরে ওই মহিলার ঠাঁই হয় ডিটেনশন ক্যাম্পে।

রেডিও ফ্রি এশিয়া নামে এক সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, বিচারে ওই মহিলার ১৪ বছরের জেলের সাজা হয়েছে। এর মধ্যে বাড়িতে কোরআন রাখার জন্য ৭ বছরের জেল এবং ইসলামিক শিক্ষা দেওয়ার জন্য বাকি ৭ বছরের জেলের সাজা হয়েছে তাঁর।

এর আগে ২০০৯ সালে ওই মহিলার স্বামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তাঁর বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্নতাবাদী কার্যকলাপে মদত দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। সেই থেকেই জেলে বন্দি সে।

প্রসঙ্গত, চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের উইঘুর মুসলিমদের উপরে নির্যাতনের ঘটনা নতুন নয়। জিনজিয়াং প্রদেশের মুসলিমদের জন্য একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি। দাঁড়ি রাখা, বোরখা পরা, আরবী ভাষায় চর্চা বন্ধ করা হয়েছে। নিষেধ অমান্য করলেই গ্রেপ্তার করে ডিটেনশন ক্যাম্পে ভরে দিচ্ছে সরকার। বিশ্বেজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠলেও চীনের দাবি, উইঘুর মুসলিমদের চীনের সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় করাতেই এমন উদ্যোগ।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.