আসাম: ভেঙে দিয়েছিল খ্রিস্টান মৌলবাদীরা, মহাদেবটিলায় শিবলিঙ্গের পুনঃপ্রতিষ্ঠা করলেন স্থানীয় হিন্দুরা

0
59

স্থানীয় মণিপুরী হিন্দুরা, হিন্দু সংগঠনগুলির সক্রিয় সমর্থনে মহাদেবটিলায় শিবলিঙ্গ পুনঃস্থাপিত হয়েছে, যেখানে খাসি দুর্বৃত্তরা ১৭ই নভেম্বর হিন্দুদের অনুভূতিতে আঘাত করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে দেবস্থানটিকে অপমান করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। উল্লেখ্য, এই মহাদেবটিলা আসামের কাছাড় জেলার কাটিগড়ায় অবস্থিত।

হিন্দু ছাত্র সংঘ, হিন্দু রক্ষি দল এবং আরএসএস-এর সদস্যরা স্থানীয় মণিপুরী হিন্দু এবং মহাদেবটিলা সেবা সমিতির সাথে সহযোগিতা করার জন্য উক্ত স্থানে উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখযোগ্য মণিপুরী হিন্দুদের, তাদের পূর্বপুরুষের দেবস্থান ফিরে পাওয়ার দৃঢ় সংকল্পের ফলেই এই স্থানটি এত দ্রুত পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। .

২৯শে নভেম্বর, প্রায় কয়েকশো লোক মহাদেবটিলায় উঠেন এবং সেখানে পূজা করেন। শিবলিঙ্গটি পুনঃস্থাপন করা হয় এবং সেই জায়গায় একটি নতুন বটগাছের চারা রোপণ করা হয়, যেখানে আগের, অন্তত 250 বছরের পুরনো বটগাছটি খাসি দুর্বৃত্তরা কেটে ফেলেছিল।

উল্লেখ্য, স্থানীয় মণিপুরী হিন্দুরা এখানে ১০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে পূজা করে আসছে। গাছটি স্থানীয় হিন্দুদের তাদের পূর্বপুরুষদের সাথে আধ্যাত্মিক যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবে কাজ করত, যারা এখানে অনেক প্রজন্ম ধরে এই একক গাছের নীচে পূজা করে আসছে। অভিযোগ খাসি দুর্বৃত্তরা স্থানটি অপবিত্র করেছে, শিবলিঙ্গ ও ত্রিশূল ছুড়ে ফেলেছে এবং ১৭ই নভেম্বর বটগাছ কেটে ফেলেছে যা স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি করেছিল। যদিও পূজার অধিকার পুনরুদ্ধার করা হয়েছে, স্থানীয় হিন্দুরা এখনও ওই স্থানে হট্টগোল সৃষ্টিকারী খ্রিস্টান উগ্রপন্থীদের কঠোর আইনি শাস্তির দাবি করে চলেছেন।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.