আসাম: নগাঁও-তে বেআইনি কসাইখানায় যাওয়ার আগে উদ্ধার ২৫টি গরু, গ্রেপ্তার ৫

0
39

পুলিশের চোখ এড়িয়ে চলছিল বেআইনি কসাইখানা। তারপর মালবাহী ট্রাকে করে আনা হতো গরু এবং সেখান থেকেই চলতো গরুর মাংস বিক্রির কারবার। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ট্রাকভর্তি গরু উদ্ধার করার পাশাপাশি ৫ কারবারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনা আসামের নগাঁও জেলার রাহা এলাকার।

উল্লেখ্য, আসামে ক্যাটেল প্রিজারভেশন আইন পাস হওয়ার পর থেকে গরু পরিবহন, গরু পাচার, গরুর মাংস বিক্রি নিষিদ্ধ হয়েছে। তারপর থেকেই পুলিশের চোখ এড়িয়ে লুকিয়ে-চুরিয়ে চলছে গরু বিক্রি ও মাংসের কারবার।

জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(হেড কোয়াটার্স) শ্রী ধ্রুব বরার নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম নগাঁও জেলার রূপাহিহাট থানার অন্তর্গত রাহা এলাকায় অভিযান চালায়। গোপন সূত্রে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাহা এলাকায় একটি ট্রাককে আটক করে পুলিশ। সেই ট্রাক থেকে ২৫টি গরু উদ্ধার করে।

পরে আটক ট্রাক চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাতভর অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় এই কারবারের সঙ্গে যুক্ত ৫ ব্যক্তিকে। ধৃতরা আসামের বিভিন্ন জেলার বাসিন্দা। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ধৃতরা হলো বরপেটার বাসিন্দা আজমত আলী(২৮); রূপাহিহাটের বাসিন্দা সফিকুল আলী(৪৫), মুকসেদুল রহমান(৩২), আমিনুল হাসান(৩৭) ও গুলজার হোসেন(৩২)।

সূত্রের খবর, সীমান্ত এলাকায় গোপনে চালানো হচ্ছে একাধিক কসাইখানা। সেখান থেকে গোপনে মাংস পাঠানো হচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়। আর সেই সমস্ত কসাইখানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল গরুগুলিকে। ধৃতদের জেরা করে এই কারবারে জড়িত বাকিদের নাম জানার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.