দেশে মুসলিম জনসংখ্যা বাড়াতেই ধর্মান্তরণ চালাচ্ছিল কলিম সিদ্দিকী, জানালো উত্তর প্রদেশ ATS

0
103

দেশে মুসলিম জনসংখ্যা বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই পরিকল্পিতভাবে হিন্দুদেরকে ইসলামে ধর্মান্তরিত করা হচ্ছিল। আর এই কাজে আরব দেশগুলি এবং পাকিস্তান থেকে আসতো কোটি কোটি টাকা। ধর্মান্তরণ গ্যাং-এর মূল মাথা কলিম সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তারের পরে এমন তথ্য জানালো উত্তর প্রদেশ ATS।

উল্লেখ্য, গত ২১শে সেপ্টেম্বর, মঙ্গলবার মীরাট থেকে মাওলানা কলিম সিদ্দিকীকে ধর্মান্তরণ চক্র চালানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার করে এটিএস। আদতে মুজফ্ফরনগর-এর বাসিন্দা হলেও একাধিক ইসলামিক এনজিও ও ট্রাস্টের মাধ্যমে হিন্দুদেরকে ইসলামে ধর্মান্তরিত করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল সে। আর এই কাজে বিদেশ থেকে আসতো প্রচুর অর্থ, এমনটাই জানান উত্তর প্রদেশের ADG(Law and order) প্রশান্ত কুমার।

জানা গিয়েছে, সৌদি আরব, কাতার, বাহরিন ও পাকিস্তান থেকে কোটি কোটি টাকা আসতো কলিম সিদ্দিকীর কাছে। আর সেই টাকা আসতো একাধিক ট্রাস্ট ও এনজিও মারফৎ। তারপর সেই অর্থ দিয়ে দেশের একাধিক রাজ্যে চালানো হচ্ছিল ধর্মান্তরণ গ্যাং। দিল্লী, উত্তর প্রদেশ, মহারাষ্ট্র এবং দক্ষিণ ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যে চলছিল কাজকর্ম। আর এইভাবে দেশের ৫ লাখ হিন্দুকে ইসলামে ধর্মান্তরিত করেছে সে।

তদন্তে ATS-এর হাতে একটি কল রেকর্ড উঠে এসেছে। তাতে জানা গিয়েছে যে হিন্দুদের মধ্যে বিভিন্ন জাতের জন্য আলাদা আলাদা দাম ধার্য করা হয়েছে। ব্রাহ্মণ কিংবা ক্ষত্রিয় হিন্দুকে যদি ইসলামে ধর্মান্তরিত করতে পারে, তার জন্য আলাদা আলাদা অর্থ মূল্য বরাদ্দ ছিল। আর এইসব চলছিল ভারতে মুসলিম জনসংখ্যা বাড়ানোর উদ্দেশ্যে।

প্রসঙ্গত, মাওলানা কলিম সিদ্দিকী পশ্চিম উত্তর প্রদেশের প্রথম সারির মাওলানা। তিনি যাকাত ফাউন্ডেশনের সদস্যও। একাধিক মুসলিম রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে তাঁর ভালো সম্পৰ্ক ছিল। বলিউড স্টারদের সঙ্গেও তাঁর মাখো মাখো ভাব। গত বছর কলিম সিদ্দিকী মন্তব্য করেছিলেন যে ভারতের সব হিন্দুকে ইসলামে ধর্মান্তরিত করা হবে এবং সেই উদ্দেশ্যেই কাজ করে চলেছেন তিনি।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.