শিলিগুড়ি: প্রথমে প্রেম, পরে ২ হিন্দু তরুণীকে খুন, গ্রেপ্তার বিবাহিত মহম্মদ আখতার হোসেন

1
56

মহম্মদ আখতার হোসেন বিবাহিত যুবক। বাড়িতে স্ত্রী ও সন্তান রয়েছে। তারপরেও বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিল সে। প্রেমের জালে ফাঁসিয়েছিলো ২ হিন্দু তরুণীকে। পরে তাদেরকে নৃশংসভাবে খুন করে। পরে একজনকে রেল লাইনের ধারে ফেলে দেয় এবং একজনকে মাটিতে পুঁতে দেয়। ঘটনা শিলিগুড়ির মাটিগাড়া এলাকার। পুলিশ ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে মহম্মদ আখতার হোসেন নামে এক যুবককে।

জানা গিয়েছে, গত ৩১শে আগস্ট শিলিগুড়ির মাটিগাড়া রেলগেট সংলগ্ন এলাকায় এক বিবাহিত তরুণীর দেহ উদ্ধার হয়। পরে জানা যায় ওই তরুণীর নাম অঙ্কিতা মাইতি। ঘটনায় খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয় স্বামী ও শাশুড়িকে। কিন্তু পরে তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে যে ওই বিবাহিতা তরুণী স্থানীয় এক যুবক মহম্মদ আখতার হোসেনের সঙ্গে মেলামেশা করতো। সেই সূত্রে তাকে আটক করে জেরা করে পুলিশ। জেরায় ওই যুবকের কথা শুনে তাজ্জব হয়ে যান তদন্তকারীরা।

ওই যুবক জেরায় জানায় যে এটি তাঁর প্রথম খুন নয়। তিন মাস আগে আর একজন তরুণীকে খুন করেছে সে এবং তাকে শুঁটকি হাটের একটি জমিতে পুঁতে দিয়েছে। পুলিশ তাকে নিয়ে যায় শুঁটকি হাটে। সেখানে মাটি খুঁড়ে সুচেতা মন্ডল নামে আর এক তরুণীর কঙ্কাল উদ্ধার করে। পড়ে সেই দেহ ফরেনসিক ল্যাবে পাঠায় পুলিশ।

জেরায় জানায় যে অঙ্কিতা ও সুচেতার সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু স্ত্রী জানতে পারায় সে দুজনকে খুন করে। তিনমাস আগে সুচেতাকে খুন করে শুঁটকি হাটের এক জমিতে পুঁতে দেয়। ওখানে পুঁতে দেওয়ার পরিকল্পনা সে আগেই করেছিল। কারণ শুঁটকি মাছের গন্ধ থাকায় দেহ পচার গন্ধ পাওয়া যাবে না। এদিকে পুলিশ খোঁজ নিয়ে জানতে পারে যে কয়েক মাস আগে চাঁদমনি এলাকার এক তরুণীর নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ দায়ের হয়েছিল। কিন্তু এতদিন দেহের কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

গতকাল দেহ উদ্ধার করার পর সুচেতার পরিবারের লোকজনকে খবর দেয় পুলিশ। মেয়ের কঙ্কাল দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন তাঁর মা। পরে সেই দেহ পরীক্ষার জন্য ফরেনসিক ল্যাবে পাঠিয়েছে পুলিশ। এই জোড়া খুনের ঘটনায় আর কেউ জড়িত কিনা, তা জানতে তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে পুলিশের তরফে।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.

1 COMMENT

  1. […] को पता चला कि विवाहिता के एक स्थानीय मोहम्मद अख्तर हुसैन नामक युवक से प्रेम सम्बन्ध थे। पुलिस […]

Comments are closed.