বিদেশি অর্থে গরীব হিন্দুদের ইসলামে ধর্মান্তরণ, ‛দাওয়াত’ চক্রের পর্দাফাঁস করলো উত্তর প্রদেশ পুলিশ

0
71

গরিব ও মূক-বধিরদের ইসলামে ধর্মান্তরণ করার একটি বড়ো চক্রের পর্দাফাঁস করলো উত্তর প্রদেশ পুলিশ। পুলিশ এই চক্রের দুই মাথা জাহাঙ্গীর আলম এবং মহম্মদ উমর গৌতমকে গ্রেপ্তার করেছে। এর পাশাপাশি এই চক্রের কাছে একাধিক বিদেশি সংগঠনের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ আসার কথাও জানতে পেরেছে পুলিশ।

বেশ কিছুদিন আগে গাজিয়াবাদের দাসনা দেবী মন্দিরের বাইরে থেকে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। ধৃতদের কাছ থেকে বেশ কিছু পুস্তিকা ও কাগজপত্র পাওয়া গিয়েছিল। সেই সমস্ত কাগজে অন্য ধর্মের মানুষদের কিভাবে ইসলামে ধর্মান্তরণ করা হয়, সে ব্যাপারে বিস্তারিত লেখা ছিল। তাদের জেরা করেই এই চক্রের পর্দাফাঁস করে পুলিশ।

কিভাবে কাজ করতো এই চক্রটি? প্রথমে গরীব ও পিছিয়ে পড়া হিন্দুদের টার্গেট করতো এই চক্রটি। তারপর তাদেরকে অর্থ, চাকরি, বিবাহের টোপ দেওয়া হত। আর সেই সঙ্গে ইসলাম গ্রহণের জন্য চলতো ব্রেনওয়াশ। তারপর ইসলাম গ্রহন করতে রাজি হলেই তাদের দক্ষিণ ভারতে পাঠিয়ে দেওয়া হত। তারপর সেখানে তাদের ইসলামিক শিক্ষা দেওয়া হতো।

প্রসঙ্গত, উত্তর প্রদেশ ATS এই চক্রের পর্দা ফাঁস করে। এদের মধ্যে মূল চক্রী মহম্মদ উমর গৌতম দিল্লীর জামিয়া নগরের বাসিন্দা। এরা মূলত ইসলামিক দাওয়াহ সেন্টার(IDC) নামে একটি সেন্টার চালাতো।

উত্তর প্রদেশের এডিজি আইন-শৃঙ্খলা প্রশান্ত কুমার প্রেস কনফারেন্স করে পুরো বিষয় জানান। ধৃতরা একাধিক বিদেশি সংগঠন হিন্দুদের ইসলামে ধর্মান্তরণ করার জন্য বিপুল পরিমাণ অর্থ যোগান দিতো। এদের মধ্যে পাকিস্তানের আইএসআই-এর নাম জানতে পেরেছে পুলিশ। ধৃতরা ইতিমধ্যেই কয়েক হাজার হিন্দুকে ইসলামে ধর্মান্তরণ করেছে বলে জানতে পেরেছেন তদন্তকারীরা।

উল্লেখ্য, ইসলামে ধর্মান্তরণ করার এই চক্রের ২ মাথা জাহাঙ্গীর আলম ও মহম্মদ উমর গৌতম পূর্বে হিন্দু ছিল। পরে দাওয়াতের ফাঁদে পড়ে ইসলামে ধর্মান্তরিত হয় এবং অন্যদের ইসলামে ধর্মান্তরিত করার কাজে লেগে পড়ে।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.