হিন্দুদের ‛অরেঞ্জ ফাঙ্গাস’ বললেন আম আদমি পার্টির নেতা আমানতুল্লাহ খান

0
189

করোনা মহামারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় কাঁপছে গোটা দেশ। এরই মধ্যে দেশে নতুন রোগের হানা- ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। একাধিক রাজ্যে চোখ রাঙাচ্ছে এই নতুন রোগ। রাজস্থান ও তেলেঙ্গানার মতো রাজ্য এই রোগের কারণে বিপর্যস্ত। ঠিক এমন সময়ে নিজের হিন্দু-ঘৃণার মনোভাব প্রকাশ করে ফেললেন আম আদমি পার্টির বিধায়ক তথা অরবিন্দ কেজরিওয়াল সরকারের মন্ত্রী আমানতুল্লাহ খান।

ছদ্মবেশী ইসলামিক মৌলবাদী আমানতুল্লাহ খান টুইট করেন, ‛ অন্য ফাঙ্গাস ছড়িয়ে পড়ার মূলে রয়েছে অরেঞ্জ ফাঙ্গাস’।

উল্লেখ্য, অরেঞ্জ অর্থাৎ কমলা এবং স্যাফ্রন অর্থাৎ গেরুয়া রং হিন্দু ধর্মের সঙ্গে যুক্ত এবং ধর্মপ্রাণ হিন্দুরা এটিকে পবিত্র রং হিসেবেই মনে করেন। এই রং আগুনের প্রতীক এবং হিন্দুরা এই রংকে ধর্মের পবিত্র অঙ্গ বলেই মনে করে। তাছাড়া, মন্দিরে পুজো দেওয়ার সময় গেরুয়া কিংবা কমলা রঙের ধাগা ব্যবহৃত হয়। এমনকি সংসার ত্যাগী সাধুরা এই রঙের বস্ত্র পরিধান করেন।

ওখলার বিধায়ক আমানতুল্লাহ খান ঘুরিয়ে পরোক্ষভাবে হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার লক্ষ্যেই অরেঞ্জ ফাঙ্গাসের মতো শব্দ ব্যবহার করেছেন বলে মনে করছেন অনেকেই। তাদের কথায়, এই মন্তব্যে ওই আম আদমি পার্টির বিধায়কের হিন্দুদের প্রতি ঘৃণার মানসিকতা প্রকাশ পেয়েছে।

উল্লেখ্য, দিল্লীর জনগণের কল্যাণ করার কথা বলে ক্ষমতায় এলেও আম আদমি পার্টিতে ভিড় রয়েছে ইসলামিক মৌলবাদী লোকজনের। সম্ভবত তাদের তুষ্ট রাখতেই বারবার হিন্দু বিরোধী বয়ান দিয়েছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এর আগে অযোধ্যায় শ্রী রাম মন্দির নির্মাণের বিরোধিতা করে সমালোচনায় মুখর হয়েছিলেন তিনি। এমনকি, দিল্লীর হিন্দু বিরোধী দাঙ্গায় অন্যতম অভিযুক্ত তাহির হুসেনও ছিলেন আম আদমি পার্টির কাউন্সিলার।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.