বাংলাদেশ: ‛তিস্তার পানি দিতে হবে’, হিন্দু স্বার্থে ডাকা বিক্ষোভে উঠলো আজব দাবি

0
65

নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরে পশ্চিমবঙ্গের প্রায় সব জেলায় হিংসা ছড়িয়ে পড়েছে। রাজনৈতিক ঝান্ডার আড়ালে বেছে বেছে হিন্দুদের ওপর আক্রমণ করার ঘটনা ঘটেছে। বেছে বেছে হিন্দুদের ব্যবসা কেন্দ্র, দোকানে ভাঙচুর করে লুটপাট চালানো হয়েছে। কয়েকটি স্থানে মন্দির ভাঙচুর করা হয়েছে। আর এসবের প্রতিবাদে মানব বন্ধনের ডাক দেয় বাংলাদেশের একাধিক হিন্দু সংগঠন।

কিন্তু সেই হিন্দু সংগঠনগুলির ডাকা বৈঠকে একটি আজব দাবি উঠলো। কি সেই দাবি? ‛তিস্তার পানি দিতে হবে’।

আজকের এই বিক্ষোভ ঢাকার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শুরু হয়। এই বিক্ষোভ ও মানব বন্ধনে অংশ নেন বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট, বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ছাত্র মহাজোট ইত্যাদি একাধিক সংগঠনের সদস্যরা। আও বিক্ষোভে পশ্চিমবঙ্গে হিন্দুদের ওপর অত্যাচারের ঘটনার প্রতিবাদ করার পাশাপাশি মমতার কুশ পুতুলও পোড়ানো হয়।

তবে এই বিক্ষোভ শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুদের ওপর আক্রমণের প্রতিবাদে করা হয়নি। ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগে বাংলাদেশের যেসব হিন্দু সংখ্যালঘুদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাদের মুক্তির দাবিও জানানো হয় এই বিক্ষোভ থেকে। পাশাপাশি, তিস্তা নদীর ন্যায্য ‛পানি’-র দাবি জানানো হয়।

অনেকেই এই বিক্ষোভের ছবি দেখিয়ে পশ্চিমবঙ্গের হিন্দু সমাজকে নিশানা করেছেন। বলছেন, আমরা সংখ্যালঘু হয়েও তোমাদের জন্য বিক্ষোভ করেছি। অনেকে আবার লজ্জায় মাথা হেঁট করে ফেলেছেন এই ভেবে যে, বাংলাদেশের হিন্দুদের জন্য আমাদের বিক্ষোভ করা উচিত ছিল। কিন্তু এই বিক্ষোভের আড়ালে যে ‛তিস্তা নদীর পানি’, যা একটি রাজনৈতিক ইস্যু এবং ভারতের নিজস্ব অভ্যন্তরীণ ব্যাপার, তা নিয়েও বিতর্ক সৃষ্টির চেষ্টা হয়েছে।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.