অসহায়তার সুযোগে করোনা মহামারীর সময়ে ১ লক্ষ হিন্দুকে খ্রিস্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে, সামনে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

0
116

ভারতে ক্রমাগত বেড়েই চলেছে খ্রিস্টান মিশনারিদের ধর্মান্তরণ । আর সেই কাজ সবচেয়ে দ্রুত গতিতে এগিয়ে গিয়েছে করোনা মহামারীর সময়ে। এক রিপোর্ট অনুযায়ী, করোনা মহামারী প্রতিরোধে লক ডাউন চলাকালীন দেশে প্রায় ১ লক্ষ হিন্দুকে খ্রিস্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে। শুধু তাই, গত ২৫ বছরে ভারতে মোট যত চার্চ তৈরি করা হয়েছিল, তার সমান সংখক চার্চ তৈরি করা হয়েছে গত ১ বছরে। 

আর খ্রিস্টান মিশনারিদের এই ভয়াবহ ধর্মান্তরণ করার তথ্য উঠে এসেছে Unfoldingworld সংস্থার রিপোর্টে। সংস্থার সিইও ডেভিড রিভস তথ্য পেশ করে একথা জানিয়েছেন। কিন্তু কিভাবে এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে খ্রিস্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত করা সম্ভব হলো, তাও জানিয়েছেন ডেভিড রিভস। তিনি বলেন, লক ডাউনের কারণে বহু মানুষ তাদের পরিচিতদের থেকে দূরে ছিলেন। তাঁরা অনেকক্ষেত্রেই অনলাইন নির্ভর হয়ে পড়েছিলেন। আর সেই সুযোগকেই কাজে লাগিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ফেসবুক, Whatsapp ইত্যাদির মাধ্যমে নিজেদের পরিচিতদের মঙ্গল কামনার উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত বিভিন্ন মেসেজের প্রচার করা হয়েছে। তাঁর মধ্যে সূক্ষভাবে বাইবেলের প্রচার করে মানুষদেরকে খ্রিস্টান ধর্মে আকৃষ্ট করা হয়েছে। 

এছাড়াও, লক ডাউনে বহু সাধারণ, খেটে খাওয়া মানুষ কাজ হারিয়েছিলেন। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গ্রামে গ্রামে দুবেলা খাবার দেওয়ার অজুহাতে যীশুর প্রার্থনা করানো হয়েছে। তারপর বাইবেল বিতরণ করে, চার্চ প্লান্টিং করা এবং প্রার্থনা সভার মাধ্যমে বিশাল সংখ্যক মানুষকে খ্রিস্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে। ডেভিড রিভস-এর হিসাবে গত ১ বছরে ভারতে ১ লক্ষ হিন্দুকে খ্রিস্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে। সারা দেশে চার্চ তৈরি করা হয়েছে ৫০,০০০-এরও বেশি। 

দেশে খ্রিস্টান মিশনারিদের ধর্মান্তকরণ কত বেপরোয়া ও ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে, তা এই পরিসংখ্যান থেকেই স্পষ্ট। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ডেভিড রিভস-এর সংস্থা পৃথিবীর বিভিন্ন ভাষায় বাইবেল অনুবাদ করে এবং তাঁরা অন্য ধর্মের মানুষদের মধ্যে তা বিনামূল্যে বিতরণ করার কাজ করে। 

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.