হরিয়ানা: বহু রোহিঙ্গা মুসলিম অনুপ্রবেশকারী রয়েছে মেওয়াটে, শুরু চিহ্নিত করার প্রক্রিয়া

0
676

বহু সংখ্যক রোহিঙ্গা মুসলিম অনুপ্রবেশকারী স্থায়ীভাবে বসবাস করছে হরিয়ানার মুসলিম অধ্যুষিত মেওয়াট জেলায়। এই জেলার নূহ গ্রামে কয়েকশ রোহিঙ্গা মুসলিম অনুপ্রবেশকারীকে রাখা হয়েছে। এমনই তথ্য উঠে এসেছে দৈনিক জাগরণ প্রকাশিত এক রিপোর্টে

উল্লেখ্য, হরিয়ানার মেওয়াট মুসলিম অধ্যুষিত এবং দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য। এই এলাকা থেকেই গরু পাচার, খুন-অপহরণকারী গ্যাং তাদের কাজ চালায়। এমনকি পুলিশ ঢুকতেও ভয় পায়। এই জেলারই নূহ গ্রামে কয়েকশ রোহিঙ্গাকে রাখা হয়েছে। সরকারি হিসেবে রোহিঙ্গার সংখ্যা ৬০০-৭০০ জন। দিল্লীর বিভিন্ন বস্তি থেকে উচ্ছেদের পর ওই রোহিঙ্গাদের মেওয়াট জেলায় আনা হয় এবং তাদেরকে বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ব্যবস্থা করে স্থানীয় মুসলিমরা।

তবে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের দাবি, পুরো হরিয়ানাতে রোহিঙ্গা মুসলিম অনুপ্রবেশকারীর সংখ্যা ১ লক্ষের বেশি। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের(VHP) নেতা বিনোদ বনসলের দাবি, পুরো হরিয়ানার একাধিক জেলায় রোহিঙ্গা মুসলিমরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। স্থানীয় মুসলিমরাই তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। মেওয়াট, ফরিদাবাদ, গুরুগ্রাম, পালওয়াল এবং যমুনানগর জেলায় বহু সংখ্যক রোহিঙ্গা মুসলিম রয়েছে। পাশপাশি ওই রোহিঙ্গারা স্থানীয় মুসলিমদের সহযোগিতায় আধার কার্ড, রেশন কার্ড এবং ভোটার কার্ড বানিয়ে ফেলেছে বলে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছেন VHP নেতা বিনোদ বনসল। সেইসঙ্গে, রোহিঙ্গাদর চিহ্নিত করে ফেরত পাঠানোর দাবিও জানিয়েছেন ওই VHP নেতা।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.