বিধানসভায় হিন্দু বাঙালির সুখ-দুঃখের কথা তুলে ধরতে চাই: দেবতনু ভট্টাচার্য

0
1219

আলাদাভাবে নয়, বিজেপির টিকিটেই বিধানসভা নির্বাচনে লড়বেন পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুত্বের অন্যতম মুখ তথা হিন্দু সংহতির সভাপতি শ্রী দেবতনু ভট্টাচার্য। তিনি লড়বেন আমতা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। টিকিট পেয়েই দেবতনু ভট্টাচার্য জানালেন, হিন্দু বাঙালির সুখ-দুঃখের কথা তুলে ধরবেন বিধানসভায়।

পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে জিহাদি হামলা ও ষড়যন্ত্রে এমনিতেই প্রান্তিক ও পিছিয়ে পড়া হিন্দুর প্রাণ ওষ্ঠাগত। ফলে তাদের অবলম্বন ও শক্তি হয়ে ওঠার জন্যই নতুন রাজনীতিক দল গড়ে ভোটে লড়াই লড়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন দেবতনু বাবু। কিন্তু বামফ্রন্ট, কংগ্রেস এবং ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্টের জোট হওয়ার পরই বদলে যায় সমীকরণ। আলাদা ভাবে ভোটে লড়লে ভোট ভাগ হওয়ার সম্ভবনা, তাই হিন্দু সংহতি বিজেপিকে সমর্থন করবে, একথা ঘোষণা করেছিলেন দিন দুয়েক আগেই। তারপরই আমতা বিধানসভায় দেবতনু বাবুকে প্রার্থী ঘোষণা করে বিজেপি। দেবতনু ভট্টাচার্য জানালেন যে এই লড়াই বাঙালির অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই, হিন্দু বাঙালির হোমল্যান্ড রক্ষার লড়াই। তিনি আরও জানালেন যে আমতা থেকেই জিতে বিধানসভায় প্রান্তিক হিন্দু সমাজের সুখ-দুঃখের কথা, তাদের সমস্যার কথা তুলে ধরতে চান।

তিনি বলেন, এমনিতেই পশ্চিমবঙ্গের হিন্দু বাঙালি জিহাদি অত্যাচারে ক্রমশ কোণঠাসা হয়ে পড়েছে। তৃণমূল সরকারের আমলে পশ্চিমবঙ্গের গ্রামাঞ্চলের হিন্দুরা জিহাদি হামলার শিকার হলেও তাদের ন্যায় বিচার দিতে কোনো উদ্যোগই নেয়নি তৃণমূল সরকার। স্বল্প ক্ষমতা নিয়ে জিহাদি শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল হিন্দু সংহতি। বর্তমানে বিজেপি শক্তিশালী হওয়ায় প্রান্তিক হিন্দুদের মনে যে নতুন আশার সঞ্চার হয়েছে, তা বাস্তবায়িত করার উদ্যোগ নিতে হবে। প্রান্তিক হিন্দুদের সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

তাছাড়া, আমতা বিধানসভায় জয়লাভের ব্যাপারে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী দেবতনু বাবু। কারণ আমতা বিধানসভায় যথেষ্ট শক্তিশালী হিন্দু সংহতি। শুধু তাই নয়, এই বিধানসভা এলাকার বহু হিন্দু সংহতির কর্মী সরাসরি বিজেপির সঙ্গে যুক্ত। ফলে দেবতনু ভট্টাচার্যের মতো হিন্দুত্ববাদী মুখ বিধানসভার প্রার্থী হওয়ায় হিন্দু সংহতির কর্মীদের পাশপাশি বিজেপি কর্মীদের মধ্যেও খুশির জোয়ার। এছাড়াও, রাজ্যের হিন্দুত্ববাদী মহলও দেবতনু ভট্টাচার্যের প্রার্থী হওয়ার ঘোষণায় খুশি। দেবতনু ভট্টাচার্যের মতো প্রার্থী বিধানসভায় গেলে উন্নয়নের পাশপাশি হিন্দুদের সমস্যা, সুবিধা-অসুবিধা নতুন সরকারের এজেন্ডায় গুরুত্ব পাবে বলেই মনে করছে হিন্দুত্ববাদী মহল।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.