মন্দিরের ৪২ বিঘা জমি খাস করেছিল বামফ্রন্ট সরকার, হাইকোর্টের রায় সত্বেও জমি ফেরত পাচ্ছে না মন্দির

0
1142

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ থাকা সত্বেও মন্দিরের জমি কোনওভাবেই ফেরত পাচ্ছে না মন্দির কতৃপক্ষ। এমনকি বিগত ১০ বছরে তৃণমূল সরকার মন্দিরের জমি উদ্ধারে কোনও পদক্ষেপই নেয়নি। এই ঘটনায় যথেষ্ট ক্ষুব্ধ স্থানীয় হিন্দু বাসিন্দারা। ঘটনা কোচবিহার জেলার তুফানগঞ্জ থানার অন্তর্গত দেওচড়াই গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝলঝলি গ্রামের সরকারপাড়া রাধাগোবিন্দ মন্দিরের।
 

জানা গিয়েছে, ১৯৫২ সালে চাঁদমোহন সরকার নামে এক ব্যক্তি স্থানীয় মন্দিরের জন্য ৪২ বিঘা জমি দান করেন। ১৯৭৭ সালে ক্ষমতায় এসে বামফ্রন্ট সরকার। এরপর সেই জমিকে অন্যায়ভাবে ব্যক্তিগত মালিকানাধীন দেখিয়ে ১৯৯৭ সালে খাস করে দেওয়া হয়। এরপর আদালতের দ্বারস্থ হয় মন্দির কতৃপক্ষ। ১৯৯৯ সালে মন্দিরের পক্ষে রায় দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। জমি মন্দির কতৃপক্ষকে ফিরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু তারপরে কেটে গিয়েছে দীর্ঘ বছর। অল্প কিছু জমি উদ্ধার করা গেলেও এখনও উদ্ধার হয়নি বেশিরভাগ জমি। জমি উদ্ধার করার দাবি জানিয়ে প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোনও কাজ হয়নি। শুধুই প্রতিশ্রুতি মিলেছে। কিন্তু জমি এখনও দখলমুক্ত হয়নি। 

স্থানীয় বাসিন্দা নিভারানী সরকার বলেন, ‛মন্দিরের জমি অবৈধভাবে খাস করে তৎকালীন বামফ্রন্ট সরকার। বিষয়টি নিয়ে দুই বার মন্দিরের পক্ষে রায় দিয়েছে হাইকোর্ট। তারপরেও কোনওভাবেই জমি ফেরত পায়নি মন্দির কতৃপক্ষ।’ মন্দিরের পুরোহিত বীরেনচন্দ্র গোস্বামী বলেন, ‛বহু বছর থেকেই আমি এই রাধাগোবিন্দ মন্দিরের সেবাইত। বামফ্রন্ট ক্ষমতায় আসার পর জমি আইন দেখিয়ে মন্দিরের ৪২ বিঘা জমি খাস করে দেয়।’ জমি উদ্ধারে তৃণমূল নেতারা প্রতিশ্রুতি দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। ফলে আবারও আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তাঁরা। 

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.