বাংলাদেশ: দিনাজপুরে একই রাতে দুটি মন্দিরে হামলা মৌলবাদীদের, মূর্তি ভাঙচুর

0
458

বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মস্থানের উপরে মৌলবাদীদের হামলা অব্যাহত। প্রায় প্রতিদিনই দেশের কোনও না কোনও জেলায় হিন্দু মন্দিরের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে চলেছে। ফলত, বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অধিকার ও স্বাধীনতা আজ প্রশ্নের মুখে। 

দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার ৭ নং আউলিয়া পুকুর ইউনিয়নের শ্রী শ্রী মা চিবুকা দেবী সার্বজনীন কালী পূজা মন্ডপ ও বৈদেশির হাট কালী মাতার মন্দিরে একযোগে প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। শনিবার (৩০ জানুয়ারি) রাতের অন্ধকারে ওই দুটি মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুর করে মৌলবাদীরা। 

রবিবার (৩১ জানুয়ারি) সকালে ভাংচুর অবস্থায় এলাকার লোকজন দেখতে পেয়ে মন্দির কমিটিকে জানান। 

খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে  চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ সুব্রত কুমার সরকার ও উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রী জ্যোতিষ চন্দ্র রায়, ৭নং আউলিয়াপুকুর ইউ পি চেয়ারম্যান মোঃ হাছিবুল হাসান (হাসিম বাবু), শ্রী নারায়ন চন্দ্র রায় সদস্য সচিব বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ চিরিরবন্দর উপজেলা শাখা, শ্রী নবীন চন্দ্র রায় বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ চিরিরবন্দর উপজেলা শাখা, শ্রী দুলাল চন্দ্র রায় সভাপতি বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ ৭নং আউলিয়াপুকুর ইউ পি, শ্রী মিহির কুমার রায় সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ ৭ নং আউলিয়াপুকুর ইউ পি শাখা, চিরিরবন্দর, দিনাজপুর, পরিদর্শন করেন।

চিরিরবন্দর উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রী জ্যোতিষ চন্দ্র রায় বলেন, “‘উপজেলার শ্রী শ্রী মা চিবুকা দেবী সার্বজনীন কালী মণ্ডপ ও বৈদেশির হাট কালী মাতার মন্দিরের আশপাশের লোকজন সকালে ঘুম থেকে উঠে মণ্ডপের মা কালীর প্রতিমা ভাঙা অবস্থায় দেখতে পান”। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, কালী মাতার প্রতিমার সম্পুর্ন অংশ ভাঙা অবস্থায় মাটিতে পড়ে থাকতে দেখতে পায়। প্রতিমাগুলোর মাথা ভেঙে ফেলেছে মৌলবাদী দুষ্কৃতীরা। স্থানীয়দের ধারণা কালী মাতার প্রতিমা অন্যান্য প্রতিমার চেয়ে উঁচু শক্তিশালী হওয়ায় দুর্বৃত্তরা কালী মাতার মূর্তি ভেঙ্গেছে।

মন্দির কমিটি বাবু সাধন রায়ের কাছে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কিনা তা জানতে চাইলে তিনি বলেন এই ঘটনায় আমরা হতাশগ্রস্থ ও আতঙ্কে আছি।  ইতিমধ্যেই থানা অফিসার ইনচার্জ পরিদর্শন করেছেন মামলার বিষয়ে সকলের সাথে আলোচনা করে পরবর্তিতে স্বীদ্ধান্ত নেওয়া হবে”। এই ঘটনায় চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ সুব্রত কুমার সরকার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ‘”ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি মণ্ডপের সার্বিক নিরাপত্তা ও প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.