টিপু সুলতান : স্বাধীনতা সংগ্রামী বীর নাকি জিহাদি বিধর্মী হত্যাকারী?

0
208

© রাজর্ষী বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাসে মহিমান্বিত চরিত্ররা কতটা মহান, তা নিয়ে ইতিহাস তলিয়ে দেখলে বিস্ময় জাগে ! যেমন ধরুন ইসলামিস্ট ঐতিহাসিকদের বর্ণনায় বিধর্মী বিদ্বেষকারী, জিহাদি, নিরাপরাধ মানুষকে ধর্মের হেতু হত্যাকারী তিতুমীর হয়েছে মহান স্বাধীনতা সংগ্রামী নেতা ! বাঁশের কেল্লা তৈরী করে ইংরেজদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা উপমহাদেশের আপামর মুসলমানের নয়নের মনি । ঠিক তেমনই আরেক বীর স্বাধীনতা সংগ্রামী হিসেবে ইসলামিস্ট ঐতিহাসিকদের এবং বেশ কিছু সেকু, মাকু আপাত প্রগতিশীল ঐতিহাসিকদের কলমে মহিমান্বিত ‘টিপু সুলতান ‘ । টিপু সুলতানের বীর বিক্রমের কথা আওড়াতে গেলে মুসলমানদের ছাতি ফুলে ৭২” হয়ে যায় । আসুন পাঠক এই মহান স্বাধীনতা সংগ্রামী বীরের ইতিহাস একটু তলিয়ে দেখি :

হিন্দু রাজার সেনাপতি হায়দার আলী মদ খাইয়ে রাজাকে বেসামাল করে হত্যা করে আর হয়ে ওঠে সুলতান। হায়দার আলীর বউ ফকির-উন-নিসা, মাস্তান টিপু আলুয়ালিয়ার কাছে বাচ্চা হওয়ার জন্য দোয়া চাইতে গেল। ফকির-উন-নিসার বিশ্বাস অনুযায়ী দরবেশের দোয়ায় তার প্রথম সন্তান ছেলে হলো এবং দরবেশকে মনে রেখে ছেলের নাম দেওয়া হলো ‘টিপু ‘ । ১৭৫০ এর ২০সে নভেম্বর জন্ম হলো টিপুর । বাবার মৃত্যুর পর টিপু সুলতান হলো। লোকে বলতো ”শের ই মহীশুর”। রাজত্বকালে ৮০০ এরও বেশী মন্দির ধ্বংসকারী এই টিপু, যার মধ্যে ভারতের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ বিশেষ তিনটে মন্দির ভাঙাকে স্বীকৃতি দিয়েছে ঐতিহাসিক সত্য হিসেবে-হরিহরেশ্বর মন্দির(মসজিদের বদলে দেওয়া হয়েছিল), শ্রীরঙ্গপত্তনমের বরাহস্বামির মন্দির এবং হসপেটের ওদাকারিয়া মন্দির । পৌত্তলিকদের মন্দির ভাঙা টিপুর নেশা ছিল যার জন্য একবার রাজা চিরাক্কাল টিপুকে মন্দির না ভাঙ্গার পরিবর্তে ৪ লক্ষ টাকা দিতে রাজি হলে পরে, উত্তরে টিপু বলে :’পৃথিবীর সমস্ত সম্পত্তি যদি কেউ আমার পায়ের কাছে এনে দেয়, তবুও আমাকে কেউ মন্দির ভাঙা থেকে নিরস্ত করতে পারবে না ।’
কুরলের নবাব ছিল রানমস্ত খান । টিপু রানমস্ত খানকে আদেশ করে কোডাভা আক্রমণ করায় । ঐতিহাসিক Mark Wilks এর মতে ৭০০০০ , Lewis Ria এর মতে ৮৫০০০ , আর Mir Kirmanir মতে ৮০০০০ হিন্দু কুর্গি পালিয়েছিলো আর ৫০০ জনকে তৎক্ষণাৎ হত্যা করা হয়েছিল । পরে পলাতকদের ধরে এনে হত্যা করা হয়, এবং কিছু সংখ্যক পুরুষদের খতনা করিয়ে আহমেদি সেনাতে বলপূর্বক রাখে। একথা অবশ্য রানমস্ত কে লেখা টিপুর নিজের চিঠিতেই পাওয়া যায় :
”We proceeded with utmost speed and , atonce , made prisoners of 40000 occasion seeking and sedition exciting coorgis, who alarmed at the approach of our victorious army , had slunk into woods and concealed themselves in lofty mountains, inaccessible even to birds.Then carrying them to the honour of Islam and incorporated them into our Ahmedy corps.”

১৭৮৮ সালে কালিকটের গভর্নর শের খানকে দিয়ে টিপু হিন্দুদের ইসলামে ধর্মান্তর যজ্ঞে মেতে ওঠে । ব্রাহ্মণদের বিশেষ করে ধরে ধরে বলপূর্বক ধর্মান্তরিত করে গোমাংস খেতে বাধ্য করা হয় । ঐতিহাসিক Kirmani তার ”Nishan-e-Haidari” বইতে লিখেছেন: { টিপু ৭০০০০ কুরগীকে ধর্মান্তরিত করেন । এমনকি টিপু মহিলা ও শিশুদেরও ছাড়েনি । মহিলাদের উলঙ্গ করে রাখা হত ইসলাম গ্রহণ না করলে । তার বিখ্যাত উক্তি ছিল, ” তোমরা আমার শরন নাও , আমি তোমাদের কাপড় দেব”}। হায়াবাদানা রাও , তার ” History of Mysore” এ লিখেছেন :
”১৭৯০ সালের দীপাবলী অর্থাত কালীপুজোর সময় এক রাতে টিপু ৭০০ জন হিন্দুকে হত্যা করে।” টিপুর জীবনীকার মাহিকূল হাসান এর মতে ত্রিবাঙ্কুরের যুদ্ধে টিপু ১০০০০ হিন্দুকে হত্যা করে ও ৭০০০ হিন্দুকে ধর্মান্তরিত করে। লন্ডনে অবস্থিত ইন্ডিয়া হাউসের লাইব্রেরিতে টিপুর লেখা বেশ কিছু চিঠি সংগৃহিত আছে । চিঠিগুলো ১৭৮২ থেকে ১৭৯৯ এর মধ্যে লেখা । ১৭৯০ সালের ১৯ এ জানুয়ারি বদ্রুস সামান খাঁকে লেখা চিঠিতে টিপু লিখেছে যে, সে মালাবারে 4 লক্ষ হিন্দুকে ধর্মান্তরিত করেছে । হাউসেরই সংগৃহিত একটা শিলালিপিতে টিপু বলেছে, ” আমার জয় গৌরবের তরোয়াল এই দেশের কাফেরদের ধ্বংস করার জন্য বিদ্যুতের মতো ঝলকাচ্ছে।”(History of Mysore , part 3).।

তাহলে কি ভারত অর্থাৎ ‘এই দেশ’ টিপুর দেশ ছিল না ? কিন্তু টিপু তো ইতিহাসের দেশপ্রেমিক স্বাধীনতা সংগ্রামী! আসুন পাঠক দেশপ্রেমী, স্বাধীনতা সংগ্রামী, বীর টিপু সুলতানের জয়গান করি……….

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here