আসামে বিজেপি ক্ষমতায় এলে মুসলিমদের হিন্দু বানানো হবে, ঘৃণা ছড়ালেন কংগ্রেস বিধায়ক

0
253

আসামের আগামী বিধানসভা ভোটে জিততে ঘৃণা ছড়ানোর পথ বেছে নিচ্ছেন কংগ্রেস নেতারা। মুসলিম ভোট ঐক্যবদ্ধ করে নিজেদের ঝুলিতে ধরে রাখতে সাধারণ মুসলিম জনতার মধ্যে ভয় ও ঘৃণা ছড়ানোর চেষ্টা করলেন কংগ্রেস বিধায়ক ওয়াজেদ আলী চৌধুরী।

গত ১৪ই নভেম্বর মুসলিম ঘনবসতি এলাকা দক্ষিণ সালমারার রাভাটারিতে এক কর্মিসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ছড়ালেন কংগ্রেস বিধায়ক। তিনি তাঁর ভাষণে বলেন, “আসামে বিজেপি সরকার ফের ক্ষমতায় এলে সব মুসলমানকে হিন্দু ধর্ম গ্রহন করতে হবে। নাহলে দেশ ছাড়তে হবে তাঁদের। আজান বন্ধ করা হবে, নামাজ আদায়ও বন্ধ করা হবে।” এখানেই থেমে থাকেননি ওই কংগ্রেস বিধায়ক। তিনি আরও বলেন, “সুপ্রিম কোর্টের সাহায্য নিয়ে বাবরি মসজিদ ভেঙে তার স্থানে রাম মন্দির তৈরি করছে বিজেপি সরকার”।

বিধানসভা ভোটের আগেই আসামজুড়ে সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্প এবং ঘৃণা ছড়াচ্ছেন আসামের মুসলিম নেতারা। সেই তালিকায় সবার ওপরে ছিলেন বদরুদ্দীন আজমল। আজমল এর আগে মন্তব্য করেছিলেন যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে নাকি মুসলিম মেয়েদের ধর্ষণ করা হবে। এবার সেই তালিকায় নতুন নাম অসাম্প্রদায়িক(?) কংগ্রেসের বিধায়ক ওয়াজেদ আলী চৌধুরী। কর্মিসভায় তাঁর ভাষণের পুরোটাই ছিল সাম্প্রদায়িক ঘৃণায় ভরা। পাশাপাশি আসামের সরকার যেভাবে মাদ্রাসা বন্ধ করেছে, তাতেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

তাঁর এই মন্তব্যে যথারীতিই বিতর্ক শুরু করেছে। বিজেপি বিরোধিতা করতে গিয়ে যেভাবে তিনি সাম্প্রদায়িক উষ্কানীমূলক ভাষণ দিয়েছেন, তাতে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি তুলেছেন অনেকে। তাছাড়া, এমন বক্তব্যের পরেও কংগ্রেসের তরফে কোনোরকম সতর্কতা জারি না হওয়ায় তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে আসামের জনমানসে- তাহলে কি কংগ্রেস নেতৃত্ব বিধায়কের এই বক্তব্যের সমর্থক?

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here