সিংহবাহিনী মা দুর্গা

0
120


© মিতালী মুখার্জী

বর্ণময় নিত্য বহমান সনাতন ধর্মের শাস্ত্র বা পুরাণে মায়ের অনেক রূপের সাথে মাতৃবাহনের ও অনেক রূপের বর্ণনা আছে। তার মধ্যে বাঘ ,সিংহ , ঘোড়া এমন কি শীতলা রূপিণী গর্দভপৃষ্ঠ আরোহিনী প্রভৃতি থাকলেও তাঁর সিংহবাহিনী মহিষাসুরমর্দিনী রূপই সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয়। কিন্তু কবে কিভাবে এই সিংহ মায়ের বাহনের স্হান নিল তা নিয়েও পুরাণে অনেক দ্বিমত আছে ।

মার্কন্ডেয়পুরাণ অনুযায়ী সর্বদেবসম্ভূতা দেবীর অস্ত্র সজ্জার সময় গিরিরাজ হিমালয় দেবীকে দান করেন প্রবল পরাক্রমশালী সিংহ পরাক্রমশালী মহিষাসুর কে বধের জন্য ।
শিব পুরাণ অনুসারে শুম্ভ – নিশুম্ভ বধের জন্য ব্রহ্মা দেবীকে সিংহারূঢ়া রূপে প্রকাশিত করেন ।
পদ্মাপুরাণ অনুসারে দুর্গার ক্রোধ থেকেই জন্ম হয় সিংহের ।

আবার দেবীপুরাণ অনুসারে বিষ্ণু দেবীর বাহন সিংহকে নির্মাণ করেছিলেন এবং সেই সিংহের মধ্যেই অধিষ্ঠিত ছিল সকল দেবতাগন । দেবীপুরাণে উল্লিখিত সিংহের ধ্যানে তাঁর শরীরের বিভিন্ন অংশে বিষ্ণু শিব এবং দুর্গাও অধিষ্ঠান করেন ।
আধ্মাত্মিকতার দিক থেকে বিচার করলে অসীম শক্তিশালী সিংহের থেকে আমাদের আত্মসমর্পনের শিক্ষা গ্রহণ করতে হয় ।
স্বামী প্রজ্ঞানন্দ মহারাজ লিখেছেন প্রত্যেক মানুষের মধ্যেই আছে পশুশক্তি । পুরুষকার ও সাধন ভজনের দ্বারা মানুষ যখন যথার্থ মনুষ্যত্বপ্রাপ্ত হয় তখন তার পশুভাব তিরহিত হয়ে দেবভাব জেগে ওঠে ।এবং তখনি সে ঈশ্বরের শরণাগত হওয়ার যোগ্যতা লাভ করে সার্থক জীবন লাভ করেন ।দেবীর চরণতলে সিংহ তমোগুণ থেকে রজোগুণে উত্তীর্ণ হয়ে দেবীর চরণতলের শোভা বর্ধন করার অধিকারী হয়েছে ।

আনুমানিক সপ্তম শতাব্দী অর্থাৎ বৌদ্ধযুগের থেকে মা দুর্গার এই সিংহবাহিনী রূপের প্রচলন বৃদ্ধি পেলেও প্রত্নতাত্বিক নিদর্শন অনুযায়ী ভারতের বহু প্রাচীনতম সভ্যতায় খ্রিস্টপুর্ব বহু বছর আগেই দেবীর এই মহিষাসুরমর্দিনী সিংহবাহিনী রূপের প্রত্নতাত্বিক নিদর্শন পাওয়া গেছে ।
আমাদের আদি ও অকৃত্তিম সনাতন ধর্মের গভীরতা মাপার সাধ্য আমার নেই । সে চেষ্টাও করলাম না । শুধু আজ মহাসপ্তমীর শুভ সকালে সকল সুহৃদ্ ও আত্মজনকে শুভ কামনা ও মা মহামায়া জগজ্জননী দুর্গা কে প্রণাম জানিয়ে প্রার্থনা করি তাঁর বাহন সিংহের মতই হোক আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্ম । বলশালী , শৌর্য বীর্যে অমিত পরাক্রমী। মায়ের চরণস্পর্শে আমাদের উত্তর প্রজন্মের উত্তরণ হোক মানবশ্রেষ্ঠ রূপে । ধন্য হোক দেশের মাটি ।
জয় মা দুর্গা।।

(মতামত লেখিকার ব্যক্তিগত)

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here