নবরাত্রি নিয়ে অশ্লীল পোস্ট, নেটিজেনদের ক্ষোভের মুখে ক্ষমা চাইলো ‛এরস নাও’

0
454

তনিষ্ক-এর পরে এবার ‛এরস নাও’। হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও আচার নিয়ে কুরুচিকর পোস্ট, ভিডিও এবং ছবি প্রকাশ করার বিরাম নেই। ‛এরস নাও’-এর দিকে অভিযোগ যে তাঁরা তাদের টুইটারে নবরাত্রি নিয়ে নোংরা ছবি এবং মন্তব্য পোস্ট করেছে। আর সেই ছবিগুলি টুইটারে ভাইরাল হতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন নেটিজেনরা। অনেকের প্রশ্ন: হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অধিকার এরস নাও-কে কে দিলো? অনেকে আবার OTT প্লাটফর্মটিকে বয়কট করার ডাক দেন। শেষমেশ চাপের মুখে পড়ে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হলো সংস্থাটি। তাদের কথায়, কারওর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়া তাদের উদ্দেশ্য ছিল না। এজন্য তাঁরা দুঃখিত।

ছবি: বিজ্ঞাপনে অশ্লীল ছবি ও শব্দের ব্যবহার( সৌজন্যে- OpIndia.com)

ভারতে হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ। কিন্তু তা সত্বেও দেশে হিন্দুফোবিয়া ক্রমশ বাড়ছে। পাশাপাশি, হিন্দুদের ওপর দেশজুড়ে আক্রমণের ঘটনা ঘটছে। কোথাও কোথাও শুধুমাত্র হিন্দু পরিচয়ের কারণে খুন হতে হচ্ছে নিরীহ হিন্দুদের। কিন্তু তারপরেও হিন্দুদের বিরুদ্ধে দেশে ক্রমাগত প্রচার চলছে যে হিন্দুরা সংখ্যালঘু মানুষদের ওপর হামলা করছে। কিন্তু বাস্তব সত্য এই যে বিগত বেশ কিছুদিন ধরে হিন্দুদের ধর্মীয় বিশ্বাস ও শ্রদ্ধা নিয়ে ছিনিমিনি খেলা চলছে দেশজুড়ে।

ছবি: এরস নাও-এর বিজ্ঞাপন( সৌজন্যে- OpIndia.com)

তনিষ্ক লাভ জিহাদের সপক্ষে বিজ্ঞাপন প্রকাশ করেছিল। তারপর ‛টাটা ক্লিক’ তাদের বিজ্ঞাপনে যোগ-প্রাণায়ামকে বিরক্তিকর বলে উল্লেখ করেছিল। যদিও একই বিজ্ঞাপনে খ্রিস্টান বিবাহকে ‛কুল’ হিসেবে উল্লেখ করেছিল। ঠিক একইভাবে লাগাতার অশ্লীল শব্দ, ছবি ব্যবহার করে নবরাত্রি অনুষ্ঠানকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করলো এরস নাও।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.