বাংলার লৌকিক দেবদেবী- করম রাজা- (১)

© পন্ডিত সুভাষ চক্রবর্তী

(১)

করম রাজা(প্রকৃতিপূজা):—-
যবনিকা উঠলো। চিত্রনাট্যের
দৃশ্যপট এইরকম…. ভাদ্রের বিষন্ন বিকেল, আবহসঙ্গীতে কিশোরীদের কণ্ঠস্বরে প্রান্ত-বাংলার রাঙামাটির সুর। সূর্যের অস্তায়মান তেরচা আলোর রেখা শালগাছের ছায়া-ছায়া আঁকাবাঁকা পথ ধরে ব্যাকুল ঘরে -ফেরা পাখির মতো চঞ্চল। একটি কিশোর…. হাতে কুঠার, সঙ্গে চার/পাঁচটি কিশোরী, খাটো হলদে রঙের শাড়ি পরে। সঙ্গে চলেছে বেহালা-বাজনদার- মেঠো সুরে বাজিয়ে চলেছে। চলেছে…. গ্রামের প্রান্তে নদীর তীরে, গভীর জঙ্গলে।

দৃশ্যপট পরিবর্তিত—-
কিশোর-কিশোরীরা গভীর জঙ্গলে পৌঁছেছে। তারা খুঁজে
চলেছে করম গাছের শাখা। একটা গাছের সামনে এসে
কিশোরটি অনুনয়ের সুরে প্রার্থনা করে—

“করম রাজা, পূজার জন্য তুমার দুটি শাখা লিব!”

কিশোরীরা গান গাইতে গাইতে শাখাদুটির গায়ে হলদে বা লাল সুতো জড়িয়ে দিল, সিঁদুর মাখিয়ে দিল।
কিশোরটি শাখাদুটি কেটে, নীচের দিকে লাল গামছা
জড়িয়ে সবাই মিলে বয়ে আনবে আখড়াতে।

তৃতীয় দৃশ্যপট—-
গ্রামপতি মাহাতো, পাহানরা(করমপূজার পুরোহিত) করম পূজার সব ব্যবস্থা প্রস্তুত করে রেখেছে। কিশোর-
কিশোরীদের গানের সুরে, বেহালার আবহে আখড়ায়
এসে পৌঁছাল করম শাখা। পাহান-সহকারী করম শাখা-
দুটি নিয়ে আখড়া-প্রাঙ্গণের বেদিতে পুঁতে দিল। গ্রামপতি
মাহাতো গ্রামের প্রতিনিধি, তিনিই পূজা করবেন। যেই
করমশাখা বেদিতে পোঁতা হল, অমনি কিশোরীরা প্রত্যেকে একটি করে ছোট ঝুড়ি এনে বেদির পাশে রাখলো। ঝুড়িতে রয়েছে
অঙ্কুরিত পঞ্চশস্য—-জনার, যব, ছোলা ইত্যাদি( মতান্তরে, ধান, যব, মাষকলাই, মুগডাল,
তিল)। পঞ্চশস্য সহ ঝুড়িকে স্থানীয় ভাষায় বলে “জাওয়া ডালি” বা জন্মানো পঞ্চশস্য।
যে মেয়েদের সন্তান হয়েছে তারাও আনবে এইরকম ছোট ঝুড়ি। তাতে থাকবে সিঁদূর-মাখানো একটা কচি শশা—যা তাদের সন্তানের প্রতীক। ঝুড়ি করমরাজার
সামনে রেখে তাদের সন্তান ও ভায়েদের মঙ্গলপ্রার্থনা
করবে। তারপর, পূজা শেষে ঝুড়িগুলি নিয়ে চলে যাবে— জাওয়া ডালি থাকলো করম রাজার সামনে—নৈবেদ্য হিসাবে। তখন, কিশোরীরা বলবে—
“আমার করম–ভায়ের ধরম”।

এটি, বোধহয়, ভায়েদের মঙ্গলকামনায় বলা হয়। শস্য
উৎপাদন ও রক্ষার সঙ্গে সঙ্গে ভায়ের মঙ্গলকামনাও
জুড়ে দেওয়া হল। ভাই শুধু নিজের নয়, পল্লীর সব কিশোরদের বুঝায়। সীমান্ত বাংলার মেদিনীপুর ও বাঁকুড়ার আদিবাসী অধ্যুষিত
পল্লীতে আজো করমপূজার প্রচলন আছে ।
(ক্রমশ)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!