মরণফাঁদ লাভ জিহাদ ও আমাদের করণীয়

0
738

বর্তমান হিন্দু সমাজের কাছে আজ সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ ‘লাভ জিহাদ’। আমাদের প্রিয় দেশ ভারতবর্ষকে দখল করবার জন্য, দার-উল-ইসলামে পরিণত করবার জন্য কট্টরপন্থী মুসলিমরা বেশ কয়েকটি পন্থা অবলম্বন করেছে। তার মধ্যে অন্যতম হল ইসলাম রাষ্ট্র থেকে বিশেষ করে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে এদেশে মুসলমান জনসংখ্যা বাড়ানাে। প্রচুর সংখ্যায় সন্তান-সন্ততি জন্ম দিয়ে মুসলিম মেয়েদের গর্ভকে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করে জনসংখ্যা বৃদ্ধি।

আর দ্বিতীয় পথ হলো ‛লাভ জিহাদ’। সাম্প্রতিক কালে দ্রুত ভারতকে ইসলামিক রাষ্ট্র পাকিস্তানে পরিণত করবার জন্য লাভ জিহাদ নামক মারাত্মক অস্ত্র প্রয়ােগ করেছে। লাভ জিহাদের মাধ্যমে হিন্দু মেয়েদের সাথে প্রেমের অভিনয় করে প্রভাব বিস্তার করে তাকে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করা।

 এ তথ্য কারওর অজানা নয় যে, পশ্চিমবঙ্গে প্রতিবছর হাজারের উপরে হিন্দু বােনেরা লাভ জিহাদের শিকার হয়ে ধর্মান্তরিত হচ্ছে এবং হিন্দু সমাজ থেকে হারিয়ে যাচ্ছে। যদি কোনো প্রাপ্তবয়স্ক হিন্দু মেয়ে ভালোবেসে মুসলিম যুবককে বিয়ে করে, তবে তা আইনের দিক থেকে বৈধ। ফলে ওই হিন্দু মেয়েটির পিতামাতা চাইলেও তাকে হিন্দু সমাজে ফিরিয়ে আনতে পারেন না।

লাভ জিহাদের শিকার হওয়ার পর হিন্দু মেয়েটিকে সন্তান উৎপাদনের যন্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হয় বােরখা পরতে বাধ্য করা হয়, গােমাংস ভক্ষণে বাধ্য করা হয়। প্রতিবাদ করলে তাদের উপর চলে অমানবিক পাশবিক অত্যাচার। এই অবস্থায় মেয়েটি না মুসলিম ঘরটিতে থাকতে পারে না বাবা-মারকাছে ফিরে আসতে পারে। ফলে অনেকে আত্মহত্যার পথ অবলম্বন করে, অনেকে আবার বিদেশে পাচার করে দেওয়া হয়। এই ভয়ানক চক্রান্তের হাত থেকে হিন্দু সমাজকে এবং দেশকে রক্ষা করবার জন্য আপনি সচেতন হন প্রতিবাদ এবং প্রতিরােধ গড়ে তুলুন।

লাভ জিহাদিরা কীভাবে ফাঁদ পাতে?

● লাভ জেহাদিরা সিনেমার নায়কের মত চলাফেরা করে এবং টিপটপ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন পােশাক পরিধান করে।

● গ্রাম থেকে শহরে পড়তে আসা হিন্দু মেয়েদের বিভিন্ন প্রকার সহযোগিতা করার ইচ্ছা প্রকাশ করে।

● মুসলিম লাভ জেহাদি হিন্দু নাম ব্যবহার করে। যেমন- পিন্টু , মিন্টু, রাজা, রাহুল, মুন্না ইত্যাদি।

● মেয়েটির জন্য গাড়িতে,বাসে, ট্রেনে প্রতিদিন জায়গা রাখে বা মােটর সাইকেলে বা সাইকেলে লিফট দেয়।

● কলেজে বা স্কুলে পড়ার সময় প্রােজেক্ট খাতা তৈরী করতে সাহায্য করে , নােটপত্র দিয়ে সাহায্য করে।

● মােবাইল, ই-মেল, ফেসবুক, টুইটার, হােয়াটস এপ -এ বারবার মেয়েটির সঙ্গে সম্পর্ক করার চেষ্টা করে।

● হােটেল, কফি হাউস, সিনেমা, পার্ক, ভালাে খাবারের দােকানে নিয়ে গিয়ে ঘনিষ্ঠতা তৈরী করে।

● মােবাইল, সেন্ট, শাড়ি, গয়না ইত্যাদি উপহার দিয়ে হিন্দু মেয়ের মন জয় করার চেষ্টা করে।

● কখন কখন জোর করে শারীরিক সম্পর্ক করে অশ্লীল ছবি তুলে মেয়েটিকে ব্ল্যাকমেল করার চেষ্টা করে।

● অফিসে, আদালতে অযাচিতভাবে সাহায্য এবং সুবিধা করবার জন্য এগিয়ে আসে।

● বিবাহিত আর্থিক দুর্বল মহিলার সন্তানদের বিভিন্ন প্রকার সাহায্যের মাধ্যমে ঘরে ঢােকার চেষ্টা করে।

● নববর্ষ, বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা, রাখি বন্ধনে রাখি পরিয়ে দিয়ে সন্তর্পনে সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে।

● মেয়েটির পরিবার যেকোন বিপদে পড়লে পরিবারকে সার্বিক সাহায্য করে পরিবারের সমবেদনা আদায় করে।

● হিন্দু পরিবারের বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অযাচিতভাবে এসে উপস্থিত হয়।

● প্রেমের জালে জড়িয়ে গেলেই মেয়েটিকে নিয়ে পালিয়ে যায় এবং ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করে।

আমাদের করণীয় কাজ

হিন্দু পরিবার ও হিন্দু মেয়েদের কাছে আমাদের অনুরােধ ইসলামের এই গভীর চক্রান্ত থেকে হিন্দু সমাজকে এবং পরিবারকে সচেতন করুন। আপনার ঘরের ও পাশের পরিবারকে এই তথ্য জানান। কারণ একটি হিন্দু মেয়ে লাভ জিহাদের শিকার হলেই হিন্দুর সংখ্যা কমে। এভাবে দ্রুত কমছে হিন্দুর সংখ্যা। আর হিন্দুর সংখ্যা কমলে এদেশ আর ভারত থাকবে না। একদিন আমাদের প্রিয় দেশ ইসলাম রাষ্ট্রে পরিণত হবে, সিরিয়া-ইরাকের মত অবস্থা হবে আমাদের । ধর্ম-সংস্কৃতি জলাঞ্জলি দিতে হবে, আবার| আমাদের দেশ ছাড়া হতে হবে। এখনও সময় আছে আমরা যদি লাভ জিহাদের বিষয়ে মা বােনদের সচেতন করি এবং আন্দোলন, প্রতিবাদ ও প্রতিরােধ গড়ে তুলি তবে আমরা এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারি। আসুন জাগ্রত হই আমাদের মা-বােনকে রক্ষা করি।

@ Hindu Voice Team

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.