মন্দির সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকার অর্থ হলো ধর্মীয় স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করা

0
100

মন্দির সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকার অর্থ হলো হিন্দুদের ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার ক্ষুন্ন করা- উত্তরাখন্ড হাইকোর্টে দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে এমনই মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ তথা বিখ্যাত আইনজীবী সুব্রামনিয়ান স্বামী। তিনি আরও বলেন, উত্তরাখন্ড সরকারের চার ধাম দেবস্থানম ম্যানেজমেন্ট আইন সংবিধান প্রদত্ত ধর্মীয় স্বাধীনতার বিরোধী। তিনি জোর দিয়ে বলেন, মন্দির পরিচালনা করার অধিকার তাঁর ভক্তদের থাকা উচিত।

কিছুদিন আগেই রাজ্যের সমস্ত মন্দির সরকারের নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য ‛চার ধাম দেবস্থানম ম্যানেজমেন্ট এক্ট’ পাস করায় উত্তরাখন্ড সরকার। এই আইনের ফলে রাজ্যের ৫১ টি মন্দিরের নিয়ন্ত্রণ সরকারের হাতে চলে আসে, যার মধ্যে কেদারনাথ, বদ্রীনাথসহ চার ধাম সামিল ছিল। এই আইনের বিরুদ্ধে উত্তরাখন্ড হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন স্বামী। তারই শুনানি ছিল গত সোমবার। সেই শুনানিতে প্রধান বিচারপতি রমেশ রঙ্গনাথন ও বিচারপতি রমেশ চন্দ্র খুলবে উপস্থিত ছিলেন। স্বামীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মনীষা ভাণ্ডারী। তিনি সওয়াল করতে বলেন, উত্তরাখণ্ডের সরকারের এই আইন সংবিধান প্রদত্ত ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকারের বিরোধী এবং সংবিধানের ২৫ ও ২৬ ধারা অনুযায়ী ধর্মীয় স্বাধীনতা সুনিশ্চিত। তাছাড়া, মন্দির পরিচালনা করার অধিকার ভক্তদের হাতেই থাকা উচিত। সরকার তাতে হস্তক্ষেপ করতে পারে না। এই জনস্বার্থ মামলার শুনানি আগামীতে জারি থাকবে। শুনানি সম্পূর্ণ হওয়ার পরই রায় দেবে হাইকোর্ট।

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.