হিন্দুর দান করা জমিতে তৈরি হলো মাদ্রাসা দফতরের কর্মতীর্থ, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

1
470

এক হিন্দু মহিলার দান করা জমিতে মাদ্রাসা দপ্তরের কর্মতীর্থ তৈরি করলো সরকার। তার প্রতিবাদে বিক্ষোভ, ভাঙচুর ঘিরে উত্তেজনা ছড়ালো এলাকায়। ঘটনা উত্তর ২৪ পরগনা জেলার

জানা গিয়েছে, নির্মলা দাস নামে এক বৃদ্ধা পঞ্চায়েতকে প্রায় ৩ বিঘা জমি দান করেন। ওই জমিতে হওয়ার কথা ছিল মন্দির। নইলে কোনও স্বাস্থ্যকেন্দ্র। সেখানেই যখন বছরদুয়েক আগে নির্মাণকাজ শুরু হয় তখন আশায় বুক বাঁধেন স্থানীয়রা। সরকারি দফতর ঘিরে জমজমাট হবে এলাকা, বাড়বে কর্মসংস্থানের সুযোগ। ছন্দ কাটে দিন কয়েক আগে। স্থানীয়রা দেখেন, নবনির্মিত সরকারি দফতরে ঝুলেছে বোর্ড। তাতে লেখা, ‘কর্মতীর্থ, সংখ্যালঘু বিষয়ক ও মাদ্রাসা শিক্ষা দফতর।’ এর পরই ক্ষোভে ফুঁসতে থাকেন স্থানীয়রা। সোমবার যা গড়াল জনতা পুলিশ সংঘর্ষে। ঘটনাস্থল উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙা লাগোয়া বেড়গুম ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের লক্ষ্মীপুর গ্রাম।

গোবরডাঙা কালীবাড়ি থেকে নকপুল পর্যন্ত ওই রাস্তা মূলত গোবরডাঙা শহরের সঙ্গে যশোর রোডের সংযোগকারী সড়কের অংশ। সেখানেই সোমবার সকাল থেকে বাঁধে ধুন্ধুমার কাণ্ড। মনসার থানের জমি কী করে মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরের হাতে গেল তা নিয়ে আগুন জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয়রা। নবনির্মিত কর্মতীর্থ ভবনে শুরু হয় ভাঙচুর। ইট মেরে জানলার কাচ ভাঙেন বিক্ষোভকারীরা। এরই মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় গোবরডাঙা থানার পুলিশ।

পুলিশ পৌঁছতেই শুরু হয় খণ্ডযুদ্ধ। অভিযোগ পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট মারতে থাকে জনতা। পালটা কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটায় পুলিশ। ছোড়ে স্টান্ট গ্রেনেড। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ঘটনাস্থলে পৌঁছয় হাবরা ও গাইঘাটা থানার অতিরিক্ত বাহিনী। পৌঁছয় RAF.

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.

1 COMMENT

  1. ভেঙ্গে ফেলেন ঐ মাদ্রাস কর্মতীর্থ দপ্তর,যেখানে মন্দির তৈরীর কথা।

Comments are closed.