গত এক বছরে ভয়ঙ্কর নির্যাতনের শিকার বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়, রিপোর্ট হিন্দু মহাজোটের

0
395

বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর অত্যাচার অব্যাহত। প্রতিদিন হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এমনকি নির্যাতন আগের তুলনায় এখন বেড়েছে। এমন তথ্য উঠে এসেছে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট প্রকাশিত রিপোর্টে। গতকাল ২রা জানুয়ারি, জাতীয় হিন্দু মহাজোটের নেতা গোবিন্দ প্রামানিক একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেন। সেই রিপোর্টে বাংলদেশে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতনের ভয়াবহ ছবি ফুটে উঠেছে। 
রিপোর্টে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে সারা বাংলদেশে মোট ৬৮৩ টি হিন্দু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় মোট ৩১, ৫০৫ জন হিন্দু নির্যাতনের শিকার হয়েছে। সারা দেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ৯, ৫০, ৭২২ একর জমি  জোরপূর্বক দখল হয়েছে। সারা দেশে মুসলিম দুষ্কৃতীরা হত্যা করেছে ১০৮ জন হিন্দুকে। এছাড়াও ভিন্ন ভিন্ন ঘটনায় হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে ৮৮ জন হিন্দুকে। সারা দেশে নিখোঁজ হয়েছে ২৬ জন হিন্দু। হিন্দুদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানও আক্রমণের হাত থেকে নিস্তার পায়নি। সারা দেশে মন্দির ও বাড়িঘর লুঠপাট হয়েছে ২৭৭টি। প্রতিমা ভাঙচুর করার ঘটনা ঘটেছে ২৪৬ টি। গত ২০১৯ সালে দেশের ৩১টি মন্দিরের প্রতিমা চুরি করে নিয়ে গিয়েছে দুষ্কৃতীরা। এছাড়াও, হিন্দুদের অপহরণ, হিন্দু মেয়েদেরকে ধর্ষণ এবং গণধর্ষণ করা, ইসলামে জোর করে ধর্মান্তরণের ঘটনাও আগের বছরগুলির তুলনায় বেড়েছে। সারা দেশে ৭৬ জন হিন্দুকে অপহরণ করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৪২জন হিন্দু মহিলা। গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৮ জন হিন্দু মহিলা। জোর করে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরণ করা হয়েছে ১৪৮ জন হিন্দুকে। এছাড়াও, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে হিন্দ ছাত্র-ছাত্রীদেরকে পরিকল্পনা করে গরুর মাংস খাওয়ানো হয়েছে ২২ জনকে।রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে যে, এত নির্যাতনের ঘটনা ঘটলেও কোনো সুবিচার পায়না হিন্দুরা। সেইসঙ্গে হাসিনা সরকারের ওপরও বড়সড় অভিযোগ এনেছে মহাজোট। তাদের তরফে রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে যে, হাসিনা সরকার মৌলবাদীদের প্রতি ঝুঁকছে। সেইসঙ্গে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হওয়া অন্যায়ের ওপরও নজর নেই সরকারের। সবমিলিয়ে নরক যন্ত্রনায় বাংলাদেশে বসবাস করতে হচ্ছে হিন্দুদের। CAA- বিরোধী বাঙালি হিন্দুরা দেখতে পাচ্ছেন বাংলদেশের হিন্দুদের যন্ত্রনা? 

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.