সরকারি মদতে ভেঙে ফেলা হলো ময়মনসিংহের শতবর্ষ প্রাচীন শিব ও দূর্গা মন্দির 

0
162

বাংলাদেশে মৌলবাদী মুসলিম দুষ্কৃতীদের হামলায় মন্দির ভাঙা কিংবা মূর্তি ভাঙচুর নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা। কিন্তু সরকারি মদতে লোকজন দিয়ে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দির ভাঙার ঘটনা নতুন। গত ১৫ই ডিসেম্বর, রবিবার বাংলাদেশের ময়মনসিংহের পাটগুদাম ব্রিজ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। রবিবার ময়মনসিংহ শহরের পাটগুদাম ব্রীজ এলাকায় রাজা বিজয় সিংহ দূরদূরিয়া শিব ও দূর্গা মন্দির জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফ খান পাঠান এর আদেশক্রমে ভেঙ্গে ফেলা হয়। মন্দির ভাঙ্গা বা সরানোর জন্য আগে থেকে কোন নোটিশ দেওয়া হয়নি। এই আকস্মিক ঘটনায় হতভম্ব স্থানীয় হিন্দুরা। কারণ ঘটনার আগে মন্দিরটি বেআইনি জায়গায় অবস্থিত কিংবা মন্দির ভাঙার কোনো সরকারি নোটিশ ছিল না। হঠাৎ করেই ঐদিন সকালেই ইউসুফ খান পাঠান লোকজন নিয়ে এসে মন্দিরটি ভেঙে দেন।

স্থানীয় হিন্দুরা সংখ্যায় কম থাকায় এই ঘটনা প্রতিরোধ  করার সাহস কেউ দেখাতে পারেননি। পরে ওই লোকজনেরা মন্দিরের ভিতরের প্রতিমা বের করে এনে রাস্তায় ফেলে রাখেন। এই মন্দির ভাঙার ঘটনায় ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক জানান, মন্দির ভাঙ্গার বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত ছিল না! ঘটনাটি দুঃখজনক! নেতৃবৃন্দরা জানান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফ খান পাঠান, সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ক্ষুন্ন করার জন্যই (জায়গাটা জেলা পরিষদের নয়) তিনি মন্দিরটি ভাঙ্গার আদেশ দেন। এটা খুব খারাপ বিষয়। দিনে দুপুরে মন্দির ভাঙচুর ও মূর্তি রাস্তায় ফেলে রাখার ঘটনা নিয়ে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।  

We are not big media organisation. Your support is what keeps us moving. Don't hesitate to contribute because, work, for society needs society's support. Jai Hind.